Blockexplorer এর ব্যবহার

Block Explorer এর ব্যবহার জানার আগে স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন আসতে পারে যে Block Explorer কি? এর কাজই বা কি? এই পোষ্টে আমরা ব্লক এক্সপ্লোরার সম্পর্কে জানব।

ব্লক এক্সপ্লোরার হল ব্লকচেইন এর জেনারেট করা ব্লক এর বিস্তারিত জানার মাধ্যম। আমরা জানি ব্লকচেইন হল ওপেন লেজার মানে এতে উন্মুক্ত ভাবে তথ্য সংরক্ষন করা হয় যাতে যে কেউ তা যে কোন সময় খুজে বের করতে ও চেক করতে পারে। কিন্তু কিভাবে তা খুজে বের করা যায় বা করতে হয়? উত্তর হল Block Explorer. ব্লক এক্সপ্লোরার এর মাধ্যমে ব্লকচেইন এর যে কোন ব্লক বা তথ্য খুজে বের করা সম্ভব।

এখন প্রশ্ন আসতে পারে বর্তমানে প্রায় ৫০০০ এর বেশি কয়েন আছে সব কয়েনের তথ্যই কি একই ব্লক এক্সপ্লোরার এর মাধ্যমে বের করা সম্ভব? উত্তর হল না। প্রতি কয়েনের যেমন ব্লকচেইন আলাদা আলাদা তাই তাদের এক্সপ্লোরার ও আলাদা। প্রতি কয়েনের এক্সপ্লোরার দিয়ে শুধু ঐ কয়েনের তথ্যই বের করা যায়। তাই যে কয়েনের তথ্য প্রয়োজন সেই কয়েনের ব্লক এক্সপ্লোরার খুজে বের করে তারপর তথ্য বের করতে হবে।

এখন আরেক প্রশ্ন আসতে পারে তা হল Coin আর Token এক না তাহলে ব্লকএক্সপ্লোরার ব্যবহার করে কিভাবে টোকেন এর তথ্য বের করা সম্ভব? উত্তর হল যে সকল ব্লকচেইন স্মার্ট কন্ট্রাক্ট বা টোকেন জেনারেশন সাপোর্ট করে তাদের ব্লক এক্সপ্লোরার দিয়েই সেই কয়েনের যেকোনো টোকেন এর তথ্য বের করা সম্ভব।

এবার Block Explorer এর ব্যবহার সম্পর্কে জানা যাক।

উদাহরনস্বরুপ আমরা শিখার উদ্দেশ্যে DGB কয়েন এর এক্সপ্লোরার কে কাজে লাগাই।

Block Explorer 1

উপরের ছবিতে এক্সপ্লোরার এর একটা উদাহরন দেওয়া হল। সাধারনত সব এক্সপ্লোরার এর কাজ একই কিন্তু ডিজাইনগত ভিন্নতা থাকতে পারে।

এবার বিশ্লেষণ করে দেখা যাক কোন জিনিস দিয়ে কি বুঝায়।

block_explorer_2

এই সার্চ বক্সে ওয়ালেট এড্রেস, ব্লক নাম্বার অথবা ট্রান্সেকশন আইডি দিয়ে সার্চ করতে হয়। ফলে আপনার প্রয়োজনীয় তথ্য পেয়ে যাবেন সেকেন্ডের মধ্যে।

Block_explorer_3

উপরের চিত্রে ৪টি জিনিস চিহ্নিত করা হয়েছে। নিচে এর বিবরন দেওয়া হল।

১. Block Height: এর মানে হল ব্লক চেইন কত নাম্বার ব্লকে আছে তা দেখানো। প্রদত্ত চিত্রে ব্লক চেইন এর দৈর্ঘ্য 11216167 ব্লক।

২. ২ চিহ্নিত অংশটি হল ব্লক নাম্বার। এখানে ক্লিক করলে ওই ব্লক রিলেটেড সব ইনফর্মেশন পাওয়া যাবে।

৩. Age: Age মানে হল কতক্ষন আগে ব্লকটি জেনারেট হয়েছে। এটা বুঝতে সাহায্য করবে যে আপনার ট্রান্সেকশন অন্য ওয়ালেটে যেতে কত সময় লাগবে।

৪. Value out: এটা দিয়ে বুঝানো হয়েছে কত পরিমান কয়েন ওই ব্লকে ট্রান্সেকশন হয়েছে। এটা আমাদের ট্রেডের সাথে তেমন সম্পর্ক যুক্ত নয় তাই আমি আরো বিস্তারিত বললাম না।

এবার টান্সেকশন আইডি এর ব্যবহার শিখা যাক।

aabbee57aebe9fbbf67edeec741aaea659cbc193749587f69af973f21426c9b7

এই আইডিটি শিখার উদ্দেশ্যে ব্যবহার করা হবে। চাইলে DGB এর ব্লক এক্সপ্লোরার এ গিয়ে নিচের ছবির মত প্র্যাকটিস করতে পারেন। প্রথমে এক্সপ্লোরার এর সার্চ বক্সে নিচের ছবির মত আইডিটি দিয়ে সার্চ বাটনে ক্লিক করুন।

Block_explorer_4

ক্লিক করতে নিচের চিত্রের মত রেজাল্ট শো করবে।

Block_explorer_5

১. ব্লকচেইন এর দৈর্ঘ্য। মানে কত ব্লক পর্যন্ত জেনারেট হয়েছে তা এখানে শো করবে।

২. ব্লক হাইট। এখানে আপনি দেখতে পারবেন যে কত নাম্বার ব্লক এ আপনার ট্রান্সেকশনটি আছে।

৩. কনফার্মেশন। এটা দিয়ে আপনি বুঝতে পারবেন আপনার ট্রান্সেকশন মাইনার কনফার্ম করার পর কত ব্লক জেনারেট হয়েছে। কনফার্মেশন একটি খুবই গুরুত্বপূর্ন জিনিস। প্রতি এক্সচেঞ্জ এ নির্দিষ্ট পরিমান কনফার্মেশন লাগে কয়েন ব্যলেন্সে যোগ হওয়ার আগে। কোন এক্সচেঞ্জ এ কত লাগে তা ঐ এক্সচেঞ্জ থেকে জেনে নিতে হবে।

শেয়ার করে বন্ধুদের জানার সুযোগ করে দিন