Exchange এর বিস্তারিত ধারনা

ক্রিপ্টোকারেন্সি ইন্ডাষ্ট্রীতে Exchange সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ। এখানে আমরা এক্সচেঞ্জ এর ব্যাপারে বিস্তারিত জানব।

Exchange কি?

Exchange হল কোন Website বা Platform যেখানে একটি কয়েনের বিপরীতে অন্য কয়েন কেনা-বেচা করা যায়। এক্সচেঞ্জকে কারেন্সি ইন্ডাষ্ট্রীর অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ স্তম্ভ বলা যেতে পারে। এমন অসংখ্য কয়েন আছে যাদের তৈরীই করা হয়েছে শুধুমাত্র ট্রেড করার জন্য এছাড়া কোন বাস্তব ব্যবহার নেই । তাই তাদের জন্য এক্সচেঞ্জই একমাত্র টিকে থাকার অবলম্বন।

Exchange এর ব্যবহার

এক্সচেঞ্জ মূলত কোন কয়েন অন্য কয়েন এর বিপরীতে কেনা-বেচা করার জন্য তৈরী করা হলেও বর্তমানে এর আরো নানান ব্যবহার লক্ষ্য করা যায়। নিচে কিছু উল্লেখযোগ্য ব্যবহার তুলে ধরা হলঃ

  1. কোন কয়েন অন্য কয়েনের বিপরীতে কেনা-বেচা করা।
  2. Web Wallet বা PC Wallet এর বিকল্প হিসাবে ব্যবহার করা।
  3. কোন কয়েন কতগুলো এক্সচেঞ্জ এ লিষ্ট করা আছে তার উপর অনেকাংশে এর গ্রহণযোগ্যতা নির্ভর করে।
  4. Exchange এর গুনগত মানের উপর কয়েনের দাম ও গুরুত্ব অনেক অংশে নির্ভর করে।
  5. প্রাথমিক ভাবে কারেন্সি মার্কেটে জয়েন করার সাথে সাথেই PC Wallet এর ব্যবহার শেখা ও করা সবার পক্ষে সম্ভব হয় না। তাই তাদের জন্য এক্সচেঞ্জ ই কয়েন ষ্টোর করার ও ট্রান্সেকশন করার মূল উপায় হিসাবে কাজ করে।

Exchange এর মূল বিষয়সমূহ

প্রতিটা এক্সচেঞ্জ সাধারনত অন্য এক্সচেঞ্জ থেকে আলাদা হয় মূলত ডিজাইনের ভিত্তিতে। কিন্তু ডিজাইন যতই আলাদা হোক না কেন প্রতি এক্সচেঞ্জ এ কিছু বিষয় থাকে যা অবশ্যই অন্য এক্সচেঞ্জ এর সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ। নিচে এমন কিছু বিষয় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হল।

  1. Balance Page
  2. Deposit এবং Withdraw
  3. Transaction History
  4. Open Order
  5. Trade History
  6. Currency Pair
  7. Base-Market
  8. Wallet Status

__________

এই সকল বিষয় সম্পর্কে বিস্তারিত জানার আগে আপনারা কি জানেন যে বর্তমানে আপনি ক্রিপ্টোকারেন্সি দিয়ে হোষ্টিং ও ডোমেন কিনতে পারবেন। অনেকেই ক্রিপ্টোকারেন্সি অনলাইনে বাস্তবিক কাজে ব্যবহার করতে আগ্রহী কিন্তু সঠিক স্থান না জানার কারনে ব্যবহার করতে পারে না। তাহলে আর দেরি নয়। আপনার প্রথম বা পরবর্তী ওয়েবসাইটটি আজই বানাতে ক্রিপ্টোকারেন্সি ব্যবহার করে হোষ্টিং ও ডোমেন কিনে ফেলুন। ডোমেন ও হোষ্টিং কিনতে এই সাইটে ভিজিট করুন। এই হোষ্টিং সার্ভিসের এর আপটাইম ৯৯.৯৭% তাই সাইট ডাউন থাকার সম্ভবনা প্রায় একেবারেই নেই। আর সেই সাথে 24*7 অনলাইন সাপোর্ট তো আছেই। তাই দেরি না করে আজই আপনার সাইট তৈরী করতে ডোমেন আর হোষ্টিং কিনে ফেলুন। আর যদি সাইট ডেভেলপ করার মত পর্যাপ্ত ধারনা আপনার না থাকে তবে আমাদের ওয়েব ডেভেলপমেন্ট পার্টনার এর সাথে যোগাযোগ করুন এখনই। আমাদের সকল ইউজারের জন্য বিশেষ ডিস্কাউন্ট এর ব্যবস্থা রয়েছে সকল ধরনের ওয়েবসাইট তৈরীর ক্ষেত্রে। আমাদের ওয়েব ডেভেলপমেন্ট পার্টনার এর সাথে যোগাযোগ করতে এই সাইটে ভিজিট করুন। অথবা শুধুমাত্র ৫০ ডলার দিয়ে যেকোনো ওয়েবসাইট তৈরী করুন fiftydollarwebsite.com হতে।

__________

১. Balance Page:

Balance Page প্রতিটা এক্সচেঞ্জ এর মূল অংশ। এখানেই ইউজারের ব্যালেন্স ও ডিপোজিট-উইথড্র এর অপশন থাকে। এই পেজের মূল বিষয় সব এক্সচেঞ্জ এ ই একই রকম। শুধুমাত্র ডিজাইনে ভিন্নতা থাকতে পারে।

Balance Page Example

উপরের চিত্রে Binance এর ব্যালেন্স পেজ দেখানো হয়েছে। এখানে চিহ্নিত অংশগুলো সাধারনত সকল এক্সচেঞ্জ এ ই থাকে।

১. চিহ্নিত অংশ হল Deposit আর Withdraw অপশন। এর মাধ্যমেই কয়েন এক্সচেঞ্জ এ Deposit আর Withdraw করা হয়। এই ব্যাপারে বিস্তারিত জানতে Exchange এ Deposit আর Withdraw করার প্রক্রিয়া পোষ্টটি পড়ুন।

২. চিহ্নিত অংশ হল Total Balance. মোট কত পরিমানে কয়েন আছে তা বুঝা যায় এখান থেকে ।

৩. চিহ্নিত অংশ হল Available Balance. মোট কত পরিমানে কয়েন অবশিষ্ট আছে কোন কারেন্সি পেয়ারে অর্ডার প্লেস করার পর তা বুঝা যায় এখান থেকে ।

৪. চিহ্নিত অংশ হল In Order Balance. মোট কত পরিমানে কয়েনের অর্ডার প্লেস করা আছে তা বুঝা যায় এখান থেকে ।

____________

2. Deposit আর Withdraw

প্রতিটি Exchange এর অন্যতম মূল ফাংশন হল Deposit আর Withdraw । Deposit আর Withdraw অপশন ছাড়া কোন এক্সচেঞ্জ চলতেই পারে না। Deposit আর Withdraw এর ব্যাপারে আলাদাভাবে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে আমাদের সাইটে যেহেতু এটি একটি অত্যন্ত গুরত্বপূর্ন বিষয়। এই ব্যাপারে বিস্তারিত জানতে Exchange এ Deposit আর Withdraw করার প্রক্রিয়া পোষ্টটি পড়ুন।

____________

3. Transaction History

প্রতিটি এক্সচেঞ্জ এর মূল ফাংশন এর মধ্যে অন্যতম হল Transaction History. এখানে কোন ইউজারের প্রত্যেক ডিপোজিট ও উইথড্র এর রেকর্ড থাকে। এখানে সাধারনত ডিপোজিট ডেট, অ্যাড্রেস, কয়েনের নাম, কয়েনের পরিমান ও ট্রান্সেকশন আইডি থাকে। নিচে একটি ট্রান্সেকশন হিষ্টোরি পেজের উদাহরন দেওয়া হল Bololex Exchange হতে।

Transaction History Page Example

১. চিহ্নিত অংশ হল Date. কবে ডিপোজিট বা উইথড্র করা হয়েছে তা এখানে লেখা থাকে।

২. চিহ্নিত অংশ হল Currency বা Coin. অনেক সময় Tiker ও লেখা থাকতে পারে। কোন কয়েন ডিপোজিট বা উইথড্র করা হয়েছে তা এখানে লেখা থাকে।

৩. চিহ্নিত অংশ হল Type. অর্থাৎ ডিপোজিট করা হয়েছে না উইথড্র তা এখানে লেখা থাকে।

৪. চিহ্নিত অংশ হল Amount. কত পরিমান কয়েন ডিপোজিট বা উইথড্র করা হয়েছে তা এখানে লেখা থাকে।

৫. চিহ্নিত অংশ হল Status. বর্তমানে ট্রান্সেকশনটি কোন অবস্থায় আছে তা এখানে লেখা থাকে।

৬. চিহ্নিত অংশ হল Transaction ID. এই আইডি ব্যবহার করে কোন ট্রান্সেকশন ব্লকচেইনে খুজে বের করা যায়। এর বিস্তারিত ব্যবহার জানতে আমাদের Blockexplorer এর ব্যবহার পোষ্টটি পড়ুন।

আর ট্রান্সেকশন সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জানতে আমাদের Transaction সম্পর্কে বিস্তারিত ধারনা পোষ্টটি পড়ুন।

__________

4. Trade History

এখানে ইউজারের করা প্রত্যেকটা ট্রেডের সকল বিস্তারিত বিবরন রেকর্ড রাখা হয়। ফলে যেকোনো সময় ইউজার চাইলেই তার করা সকল ট্রেড এর বিস্তারিত বিবরন দেখতে পারবেন। এটা একটা গুরুত্বপূর্ন পেজ। অনেক সময় ৫-৬টি কারেন্সি পেয়ারে একসাথে ট্রেড করলে মনে রাখা কষ্টকর হয়ে পড়ে যে কোথায় কত ইনভেষ্ট করা হয়েছিল এবং কোথায় কত ট্রেড হওয়ায় কত প্রফিট হল। তাই তখন এই পেজ হতে বিস্তারিত হিসাব নিকাষ করা হয়।

Trade History Page Example

উপরের ছবিতে Bololex এর একটি ট্রেড হিষ্টোরি পেজের উদাহরন দেওয়া হল। সাধারনত প্রতি এক্সচেঞ্জ এ ই এমন ট্রেড হিষ্টোরি পেজ থাকে। এখানে ইউজারের করা প্রত্যেকটা ট্রেডের রেকর্ড রাখা হয়। ফলে যেকোনো সময় ইউজার চাইলেই তার করা সকল ট্রেড এর বিস্তারিত বিবরন দেখতে পারে।

_________

5. Open Order

Open Order Page Example

উপরের ছবিতে Bololex এক্সচেঞ্জ এর Open Order পেজের উদাহরন দেওয়া হল। Open Order পেজে বর্তমানে যে সকল অর্ডার প্লেস করা আছে নানান কারেন্সি পেয়ারে সব এখানে লিষ্ট আকারে শো করে। এখান থেকে চাইলে সেই কারেন্সি পেয়ারে সহজে ভিজিট করা যায় অথবা অর্ডার ক্যান্সেল করা যায়।

6. Currency Pair: Currency Pair এর ব্যাপারে জানতে আমাদের Crypto Terms পেজ ভিজিট করুন।

7. Base-Market: Base-Market এর ব্যাপারে জানতে আমাদের Crypto Terms পেজ ভিজিট করুন।

8. Wallet Status: ওয়ালেট স্ট্যাটাস এর ব্যাপারে অনেকেরই কোন প্রকার ধারনাই থাকেনা দীর্ঘদিন মার্কেটে ট্রেড করার পরেও যদিও এর গুরুত্ব অপরিসীম। ওয়ালেট স্ট্যাটাস বলতে কোন কয়েন অই এক্সচেঞ্জ এ কি অবস্থায় আছে তা বুঝানো হয়। যেহেতু এটা একটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয় তাই এই ব্যাপারে আলাদা করে বিস্তারিত ভাবে Wallet Status এর বিস্তারিত পোষ্ট এ আলোচনা করা হয়েছে।

শেয়ার করে বন্ধুদের জানার সুযোগ করে দিন